কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

এন এস রোড, কুষ্টিয়া -৭০০০।

মাউশি কোড: ০০৮৮

লেটেস্ট নিউজ :
This is an example of a HTML caption with a link.

বিদ্যালয়ের পরিচিতি

কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ঐতিহ্যবাহী কুষ্টিয়া শহরের প্রানকেন্দ্রে নবাব শহীদ সিরাজুদ্দৌলা রোডে অবস্থিত। উত্তরে স্রোতসিনী গড়াই, দক্ষিনে বাংলাদেশ রেলওয়ের লাইন পশ্চিমে পুরাতন হাসপাতাল ও সিভিল সার্জন অফিস এবং পণ্য সামগ্রীর সমারোহ মাঝে লতাকুঞ্জ ও বৃক্ষবিক্ষিকা শোভিত দ্বিতল ও ত্রিতল অট্টালিকা। অপূর্ব শোভা বর্ধনকারী বৃক্ষরাজির ছায়া ঘেরা কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। বিদ্যালয়টি জন্মলগ্নে অন্য স্থানে ছিল। স্বর্গীয় বাবু রামলাল সাহা নামে একজন বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তি ও স্থানীয় জনসাধারনের সহায়তায় চতুর্থ শ্রেনী পর্যন্ত একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। সেই দিনের বীজ আজ রিরাট মাহীরুহে পরিনত হয়েছে। তৎকালে এটাই ছিল নারী শিক্ষা প্রসারনের একমাত্র প্রতিষ্ঠান। আনুমানিক ১৮৮৬ সালে স্থানীয় শিক্ষিত ও বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তিবর্গের প্রচেষ্ঠায় বর্তমান স্থানে এই বিদ্যালয়টি স্থানান্তরিত হয় এবং এম, ই বিদ্যালয়ে পরিনত হয়। সদর মাহকুমা ম্যাজিষ্ট্রেট এর অনুমোদন ক্রমে এর নাম হয় “চারুলতা বালিকা বিদ্যালয়” এবং প্রথম অট্টালিকা তারই প্রচেষ্টায় নির্মিত হয় যা বর্তমানে বিলীন হয়ে গেছে। অতপর ১৯৩৯ সালে তৎকালীন মহকুমা ম্যাজিষ্টেট মৃগাংক মলি¬ক কর্তক বর্তমানের পুরাতন দ্বিতল অট্টালিকার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপিত হয়। বহুদিন পর্যন্ত চারুলতা বালিকা বিদ্যালয় নামেই পরিচিত ছিল। ছাত্রী সংখ্যা একেবারে নগন্য ছিল কলিকাতা বিশ্ববিদ্যলয়ের অধিনে এর প্রবেশিকা পরীক্ষা হতো । তারপর ১৯৫০ সালে এটি কুষ্টিয়া সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় নামে পরিচিত হলো। এরপর ১৯৬২ সালে ২৫শে মে সরকারী পর্যায়ে উন্নতী হয়। বেসরকারী থাকা কালীন অবস্থায় এবং পুরাদমে লেখা-পড়া খেলা-ধুলা গান-বাজনা ইত্যাদি ছাত্রীরা সমান ভাবে সুনাম অর্জন করতো। ১৯৫৬-৫৭ সালের মধ্যে বিদ্যালয়ের সদৃশ্য মিলানায়টি নির্মিত হয়। ১৯৪৮ সাল থেকে সরকারি না হওয়া পর্যন্ত প্রধান শিক্ষক শিক্ষিকা গন ছিলেন যথাক্রমে- মিসেস জোবায়দা মির্জা, মিঃ আজাহার হোসেন, মিসেস গোলেনূর রহিম, মিসেস সুফিয়া চৌধরী । মিসেস সুফিয়া চৌধরী প্রধান শিক্ষক থাকা কালীন সময়ে অত্র বিদ্যালয় সরকারী বিদ্যালয়ে পরিনত হয়।১৯৯১ সালে এক সরকারী আদেশের মাধ্যমে বিদ্যালয়ে প্রাতঃ শাখা ও দিবা শাখা নামে দুইটি শিপট্ চালু হয়। দুইটি শিফটে ৩য় শ্রেনী থেকে দশম শ্রেনী পর্যন্ত চালু রয়েছে। বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা সাংস্কৃতিক অঙ্গনে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পযার্য়ে শ্রেষ্ঠত্বের স্থানে নিজেদের কে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছে।

প্রধান শিক্ষকের বাণী

কুষ্টিয়া  জেলার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কুষ্টিয়া সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় । এই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে রেখেছে তাদের যোগ্যতার স্বাক্ষর । বিদ্যালয়ের চলার পথের এই গৌরবময়  পরিক্রমায় এবার যুক্ত হল  নিজস্ব ওয়েবসাইট। তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করা  এই ওয়েবসাইটের লক্ষ্য। ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে  শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে  সহজ ও দ্রুততম সময়ে তথ্য ও উপাত্ত সরবরাহ করা সম্ভব হবে এবং সচ্ছতা, গতিশীলতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে । তদুপরি শিক্ষা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তর এবং অন্যান্য সরকারি অফিসের  মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করাও সহজসাধ্য হবে । বিশ্বায়নের এই যুগে প্রযুক্তিগত উন্নয়নের কোন বিকল্প নাই। উন্নয়নের স্বার্থেই প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। ওয়েবসাইটি শিক্ষার্থীদের প্রযুক্তি ব্যবহারে অভ্যস্থ করে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমার বিশ্বাস । সর্বোপরি ওয়েবসাইটটি শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও স্কুল সংশ্লিষ্ট  সকলের সম্পর্ককে আরও সুন্দর ও নিবিড়  করবে এই প্রত্যাশা করি।

 

মহা: মোজাম্মেল হক

প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত)

কুষ্টিয়া সরকারি বালকিা উচ্চ বিদ্যালয়,

কুষ্টিয়া।

ফটো গ্যালারী

  • Gallery 1
  • Gallery 2
  • 15 Agust-2016 our rally
  • Gallery 3
  • নিরাপদ সড়ক চাই